Skip to main content
قَالَ
(সুলায়মান) বললো
نَكِّرُوا۟
"তোমরা অজ্ঞাতসারে রাখো
لَهَا
সামনে তার
عَرْشَهَا
সিংহাসন তার
نَنظُرْ
দেখবো আমরা
أَتَهْتَدِىٓ
সে (সঠিক) ব্যাপার বুঝতে পারছে কি
أَمْ
অথবা
تَكُونُ
সে হয়
مِنَ
অন্তর্ভুক্ত
ٱلَّذِينَ
(তাদের) যারা
لَا
না"
يَهْتَدُونَ
পথ পায়"

তাফসীর তাইসীরুল কুরআন:

সুলাইমান বলল- ‘তার সিংহাসনের আকৃতি বদলে দাও, অতঃপর আমরা দেখি, সে (তার নিজের পৌঁছার পূর্বেই আলৌকিকভাবে তার সিংহাসন সুলায়মানের দরবারে রক্ষিত দেখে সত্য) পথের দিশা পায়, না যারা পথের দিশা পায় না সে তাদের অন্তর্ভুক্ত।

1 আহসানুল বায়ান | Tafsir Ahsanul Bayaan

(সুলাইমান) বলল, ‘তার সিংহাসনের আকৃতি বদলে দাও;[১] দেখি সে সঠিক চিনতে পারে, নাকি সে বিভ্রান্ত হয়?’ [২]

[১] অর্থাৎ, তার রং, রূপ বা আকারে পরিবর্তন করে দাও।

[২] অর্থাৎ, দেখি সে জানতে পারে যে, সিংহাসনটি তার, নাকি জানতে পারে না। দ্বিতীয় অর্থ, সে হিদায়াত পায় কি, পায় না। অর্থাৎ এত বড় মু'জিযা দেখার পরও সে সঠিক (ঈমানের) পথ পায়, না পায় না।

2 আবু বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া | Tafsir Abu Bakr Zakaria

সুলাইমান বললেন, ‘তোমরা তার সিংহাসনের আকৃতি তার কাছে অপরিচিত করে বদলে দাও; দেখি সে সঠিক দিশা পায়, না সে তাদের অন্তর্ভুক্ত যাদের দিশা নেই [১]?

[১] এর অর্থ হচ্ছে, হঠাৎ তিনি স্বদেশ থেকে এত দূরে নিজের সিংহাসন দেখে একথা বুঝতে পারেন কি না যে এটা তারই সিংহাসন এবং এটা উঠিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। আবার এ বিস্ময়কর মু‘জিযা দেখে তিনি সত্য-সঠিক পথের সন্ধান পান অথবা নিজের ভ্ৰষ্টতার মধ্যে অবস্থান করতে থাকেন কি না এ অর্থও এর মধ্যে নিহিত রয়েছে। [দেখুন, ইবন কাসীর; ফাতহুল কাদীর]

3 আল-বায়ান ফাউন্ডেশন | Tafsir Bayaan Foundation

সুলাইমান বলল, ‘তোমরা তার জন্য তার সিংহাসনের আকার-আকৃতি পরিবর্তন করে দাও। দেখব সে সঠিক দিশা পায় নাকি তাদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে পড়ে, যারা সঠিক দিশা পায় না’।

4 মুহিউদ্দীন খান | Muhiuddin Khan

সুলায়মান বললেন, বিলকীসের সামনে তার সিংহাসনের আকার-আকৃতি বদলিয়ে দাও, দেখব সে সঠিক বুঝতে পারে, না সে তাদের অন্তর্ভুক্ত, যাদের দিশা নেই ?

5 জহুরুল হক | Zohurul Hoque

তিনি বললেন -- ''তার সিংহাসনখানা তারজন্য বদলে দাও, আমরা দেখতে চাই সে সৎপথ অবলন্বন করে, না সে তাদের দলের হয় যারা সৎপথে চলে না।’’