Skip to main content
ARBNDEENIDTRUR
bismillah
الٓمٓ
আলিফ লাম- মীম-

আলিফ-লাম-মীম,

ব্যাখ্যা
تَنزِيلُ
অবতরণ (হয়েছে)
ٱلْكِتَٰبِ
(এই) কিতাবের
لَا
নেই
رَيْبَ
সন্দেহ
فِيهِ
মধ্যে তার
مِن
পক্ষ হ'তে
رَّبِّ
রবের
ٱلْعَٰلَمِينَ
বিশ্বজগতের

এ কিতাব বিশ্বজগতের পালনকর্তার নিকট হতে অবতীর্ণ, এতে কোন সন্দেহ নেই।

ব্যাখ্যা
أَمْ
কি
يَقُولُونَ
তারা বলেছে
ٱفْتَرَىٰهُۚ
"সে মিথ্যা রচনা করেছে তা"
بَلْ
বরং
هُوَ
তা
ٱلْحَقُّ
সত্য
مِن
পক্ষ হ'তে
رَّبِّكَ
রবের তোমার
لِتُنذِرَ
যেন তুমি সতর্ক করো
قَوْمًا
(এমন)এক জাতিকে
مَّآ
না
أَتَىٰهُم
কাছে এসেছে তাদের
مِّن
কোনো
نَّذِيرٍ
সতর্ককারী
مِّن
থেকে
قَبْلِكَ
তোমার পূর্ব
لَعَلَّهُمْ
সম্ভবত তারা
يَهْتَدُونَ
সঠিক পথে চলবে

তবে তারা কি বলে যে, সে নিজেই তা রচনা করেছে (এবং আল্লাহর নিকট থেকে আগত কিতাব ব’লে মিথ্যে দাবী করছে, না তা নয়), বরং তা তোমাদের প্রতিপালকের নিকট থেকে (আগত) সত্য যাতে তুমি এমন এক সম্প্রদায়কে সতর্ক করতে পার যাদের কাছে তোমার পূর্বে কোন সকর্তকারী আসেনি, সম্ভবতঃ তারা সঠিকপথ প্রাপ্ত হবে।

ব্যাখ্যা
ٱللَّهُ
(তিনিই)আল্লাহ
ٱلَّذِى
যিনি
خَلَقَ
সৃষ্টি করেছেন
ٱلسَّمَٰوَٰتِ
আকাশসমূহকে
وَٱلْأَرْضَ
ও পৃথিবীকে
وَمَا
এবং যা কিছু
بَيْنَهُمَا
উভয়ের মাঝে তাদের (আছে)
فِى
মধ্যে
سِتَّةِ
ছয়
أَيَّامٍ
দিনের
ثُمَّ
এরপর
ٱسْتَوَىٰ
সমাসীন হন
عَلَى
উপর
ٱلْعَرْشِۖ
আরশের
مَا
নেই
لَكُم
জন্যে তোমাদের
مِّن
ছাড়া
دُونِهِۦ
তিনি
مِن
কোনো
وَلِىٍّ
অভিভাবক
وَلَا
আর না
شَفِيعٍۚ
সুপারিশকারী
أَفَلَا
কি তবে না
تَتَذَكَّرُونَ
তোমরা উপদেশ গ্রহণ করবে

আল্লাহ যিনি আকাশমন্ডলী ও পৃথিবী এবং এ দু’এর মাঝে যা কিছু আছে ছয় দিনে সৃষ্টি করেছেন- অতঃপর তিনি ‘আরশে সমুন্নত হন। তিনি ব্যতীত তোমাদের জন্য কোন অভিভাবক নেই, সুপারিশকারীও নেই। তবুও কি তোমরা উপদেশ গ্রহণ করবে না?

ব্যাখ্যা
يُدَبِّرُ
তিনি পরিচালনা করেন
ٱلْأَمْرَ
সবকাজের
مِنَ
থেকে
ٱلسَّمَآءِ
আকাশ
إِلَى
পর্যন্ত
ٱلْأَرْضِ
পৃথিবী
ثُمَّ
এরপর
يَعْرُجُ
উত্থিত হবে
إِلَيْهِ
দিকে তাঁরই
فِى
মধ্যে
يَوْمٍ
একদিনের
كَانَ
হবে
مِقْدَارُهُۥٓ
যার পরিমাণ (তোমাদের কাছে)
أَلْفَ
এক হাজার
سَنَةٍ
বছর
مِّمَّا
সেই(হিসেব)থেকে যা
تَعُدُّونَ
তোমরা গণনা করো

তিনি আকাশ হতে পৃথিবী পর্যন্ত কার্য পরিচালনা করেন, অতঃপর সকল বিষয়াদি তাঁরই কাছে একদিন উত্থিত হবে যার পরিমাপ তোমাদের গণনা অনুযায়ী হাজার বছর।

ব্যাখ্যা
ذَٰلِكَ
তিনিই
عَٰلِمُ
জ্ঞানী
ٱلْغَيْبِ
অদৃশ্যের
وَٱلشَّهَٰدَةِ
ও দৃশ্যের
ٱلْعَزِيزُ
মহাপরাক্রমশালী
ٱلرَّحِيمُ
পরম দয়ালু

এমনই তিনি, অদৃশ্য ও দৃশ্যমান সম্পর্কে জ্ঞাত, মহাপরাক্রমশালী, পরম দয়ালু।

ব্যাখ্যা
ٱلَّذِىٓ
যিনি
أَحْسَنَ
অতি উত্তম করেছেন
كُلَّ
প্রত্যেক
شَىْءٍ
বস্তকে
خَلَقَهُۥۖ
তিনি সৃষ্টি করেছেন তা
وَبَدَأَ
এবং সূচনা করেছেন
خَلْقَ
সৃষ্টি
ٱلْإِنسَٰنِ
মানুষের
مِن
থেকে
طِينٍ
কাদামাটি

যিনি সব কিছুকে উত্তমরূপে সৃষ্টি করেছেন, আর মানুষ সৃষ্টির সূচনা করেছেন মাটি থেকে।

ব্যাখ্যা
ثُمَّ
এরপর
جَعَلَ
সৃষ্টি করেছেন
نَسْلَهُۥ
বংশধরকে তার
مِن
থেকে
سُلَٰلَةٍ
নির্যাস
مِّن
থেকে
مَّآءٍ
পানির
مَّهِينٍ
তুচ্ছ

অতঃপর তিনি তার বংশধর সৃষ্টি করেন তুচ্ছ তরল পদার্থের নির্যাস থেকে।

ব্যাখ্যা
ثُمَّ
এরপর
سَوَّىٰهُ
সুঠাম করেছেন তাকে
وَنَفَخَ
ও ফুঁকে দিয়েছেন
فِيهِ
মধ্যে তার
مِن
থেকে
رُّوحِهِۦۖ
রূহ তার
وَجَعَلَ
এবং দিয়েছেন
لَكُمُ
জন্যে তোমাদের
ٱلسَّمْعَ
শ্রবণশক্তিসমূহ
وَٱلْأَبْصَٰرَ
ও দর্শনশক্তিসমূহ
وَٱلْأَفْـِٔدَةَۚ
ও অন্তরসমূহ
قَلِيلًا
কমই
مَّا
যা
تَشْكُرُونَ
তোমরা কৃতজ্ঞতা স্বীকার করো

অতঃপর তিনি তাকে সামঞ্জস্যপূর্ণ করেছেন আর তার ভিতরে স্বীয় রূহ হতে ফুঁক দিয়েছেন, আর তোমাদেরকে দিয়েছেন শ্রবণেন্দ্রীয়, দর্শনেন্দ্রিয় ও অন্তঃকরণ; কৃতজ্ঞতা তোমরা সামান্যই প্রকাশ কর।

ব্যাখ্যা
وَقَالُوٓا۟
এবং তারা বলে
أَءِذَا
"কি যখন
ضَلَلْنَا
আমরা মিশে যাবো
فِى
মধ্যে
ٱلْأَرْضِ
মাটির
أَءِنَّا
কি নিশ্চয়ই আমরা (হবো)
لَفِى
অবশ্যই মধ্যে
خَلْقٍ
সৃষ্টি
جَدِيدٍۭۚ
নতুন"
بَلْ
বরং
هُم
তারা
بِلِقَآءِ
সম্পর্কে সাক্ষাত
رَبِّهِمْ
রবের তাদের
كَٰفِرُونَ
অস্বীকারকারী

তারা বলে, কী! আমরা মাটিতে মিশিয়ে গেলেও কি আমাদেরকে আবার নতুন ক’রে সৃষ্টি করা হবে? বরং তারা তাদের প্রতিপালকের সাক্ষাৎকে অস্বীকার করে।

ব্যাখ্যা
সম্পর্কে তথ্য :
সেজদাহ
القرآن الكريم:السجدة
আধিপত্য একটি আয়াত (سجدة):15
সূরা নাম (latin):As-Sajdah
সূরা না:32
মোট আয়াত:30
মোট শব্দ:380
মোট অক্ষর:1580
রুকু সংখ্যা:3
উদ্ঘাটন অবস্থান:মক্কা
উদ্ঘাটন আদেশ:75
শ্লোক থেকে শুরু:3503