Skip to main content
ARBNDEENIDTRUR
bismillah
الٓرۚ
আলিফ-লাম-রা
كِتَٰبٌ
(এই) কিতাব
أُحْكِمَتْ
সুপ্রতিষ্ঠিত করা হয়েছে
ءَايَٰتُهُۥ
তার আয়াতসমূহ
ثُمَّ
এরপর
فُصِّلَتْ
বিশদভাবে বর্ণিত
مِن
থেকে
لَّدُنْ
পক্ষ
حَكِيمٍ
(এমন সত্ত্বার যিনি) প্রজ্ঞাময়
خَبِيرٍ
সর্বজ্ঞ

আলিফ, লাম, রা; এটা এমন একটা গ্রন্থ, এর আয়াতগুলো সুদৃঢ়, অতঃপর সবিস্তারে ব্যাখ্যাকৃত মহাজ্ঞানী, সর্বজ্ঞের নিকট হতে।

ব্যাখ্যা
أَلَّا
(হুকুম হলো) না যে
تَعْبُدُوٓا۟
তোমরা উপাসনা করো
إِلَّا
ছাড়া
ٱللَّهَۚ
আল্লাহ
إِنَّنِى
নিশ্চয়ই আমি
لَكُم
তোমাদের জন্য
مِّنْهُ
তাঁরই পক্ষ হ'তে
نَذِيرٌ
সতর্ককারী
وَبَشِيرٌ
ও সুসংবাদ বাহক"

(এটা শিক্ষা দেয়) যে, তোমরা আল্লাহ ছাড়া কারো ‘ইবাদাত করবে না, আমি অবশ্যই তাঁর পক্ষ হতে তোমাদের জন্য ভয় প্রদর্শনকারী ও সুসংবাদদাতা।

ব্যাখ্যা
وَأَنِ
এবং (এও) যে
ٱسْتَغْفِرُوا۟
"তোমরা ক্ষমা চাও
رَبَّكُمْ
তোমাদের রবের (কাছে)
ثُمَّ
এরপর
تُوبُوٓا۟
ফিরে আসো তোমরা
إِلَيْهِ
তাঁরই দিকে
يُمَتِّعْكُم
তিনি তোমাদের উপভোগ করতে দিবেন
مَّتَٰعًا
জীবন সামগ্রী
حَسَنًا
উত্তম
إِلَىٰٓ
পর্যন্ত
أَجَلٍ
একটি কাল
مُّسَمًّى
নির্দিষ্ট
وَيُؤْتِ
ও দিবেন
كُلَّ
প্রত্যেক
ذِى
যোগ্য (ব্যক্তিকে)
فَضْلٍ
অনুগ্রহ পাওয়ার
فَضْلَهُۥۖ
তাঁর অনুগ্রহ
وَإِن
কিন্তু যদি
تَوَلَّوْا۟
তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও
فَإِنِّىٓ
তবে নিশ্চয়ই আমি
أَخَافُ
আমি আশঙ্কা করছি
عَلَيْكُمْ
তোমাদের উপর
عَذَابَ
শাস্তির
يَوْمٍ
দিনের
كَبِيرٍ
মহা

(এটা শিক্ষা দেয়) যে, তোমরা তোমাদের প্রতিপালকের নিকট ক্ষমা চাও, আর অনুশোচনাভরে তাঁর দিকেই ফিরে এসো, তাহলে তিনি একটা নির্দিষ্ট কাল পর্যন্ত তোমাদেরকে উত্তম জীবন সামগ্রী ভোগ করতে দিবেন, আর অনুগ্রহ লাভের যোগ্য প্রত্যেক ব্যক্তিকে তিনি তাঁর অনুগ্রহ দানে ধন্য করবেন। আর যদি তোমরা মুখ ফিরিয়ে নাও তাহলে আমি তোমাদের উপর বড় এক কঠিন দিনের ‘আযাবের আশঙ্কা করছি।

ব্যাখ্যা
إِلَى
দিকে
ٱللَّهِ
আল্লাহরই
مَرْجِعُكُمْۖ
তোমাদের প্রত্যাবর্তন (হবে)
وَهُوَ
এবং তিনি
عَلَىٰ
উপর
كُلِّ
সব
شَىْءٍ
কিছুরই
قَدِيرٌ
সর্বশক্তিমান"

তোমাদের প্রত্যাবর্তন আল্লাহর কাছেই, আর তিনি সব কিছুই করতে সক্ষম।

ব্যাখ্যা
أَلَآ
জেনে রাখো (লক্ষ্য করো)
إِنَّهُمْ
তারা নিশ্চয়ই
يَثْنُونَ
দু-ভাঁজ করে
صُدُورَهُمْ
তাদের অন্তরগুলোকে
لِيَسْتَخْفُوا۟
গোপন রাখার জন্যে (তাদের বিদ্বেষ)
مِنْهُۚ
তাঁর থেকে
أَلَا
জেনে রাখো
حِينَ
যখন
يَسْتَغْشُونَ
তারা ঢেকে রাখে (নিজেদেরকে)
ثِيَابَهُمْ
তাদের কাপড় (দিয়ে)
يَعْلَمُ
(তখনও) তিনি জানেন
مَا
যা
يُسِرُّونَ
তারা গোপন করে
وَمَا
আর যা
يُعْلِنُونَۚ
তারা প্রকাশ করে
إِنَّهُۥ
নিশ্চয়ই তিনি
عَلِيمٌۢ
সবিশেষ অবহিত
بِذَاتِ
সম্পর্কে অবস্থা
ٱلصُّدُورِ
অন্তরসমূহের

লক্ষ্য কর, এরা নিজেদের বুক ঘুরিয়ে নেয় যাতে তারা তাঁর (অর্থাৎ আল্লাহর) থেকে লুকিয়ে থাকতে পারে। সাবধান! এরা যখন কাপড় দিয়ে নিজেরা নিজেদেরকে ঢেকে নেয়, তখন তারা যা গোপন করে আর প্রকাশ করে তিনি তা জানেন। তাদের মনের গভীরে যা আছে সে বিষয়ে তিনি সবচেয়ে বেশি অবহিত।

ব্যাখ্যা
وَمَا
এবং নেই
مِن
(এমন) কোন
دَآبَّةٍ
বিচরণশীল জীব
فِى
মধ্যে
ٱلْأَرْضِ
পৃথিবীর
إِلَّا
এছাড়া
عَلَى
উপর
ٱللَّهِ
আল্লাহরই
رِزْقُهَا
তার জীবিকার (দায়িত্ব)
وَيَعْلَمُ
এবং তিনি জানেন
مُسْتَقَرَّهَا
তার স্থায়ী অবস্থান
وَمُسْتَوْدَعَهَاۚ
ও তার অস্থায়ী অবস্থান
كُلٌّ
সবই
فِى
মধ্যে (আছে)
كِتَٰبٍ
এক কিতাবের
مُّبِينٍ
সুস্পষ্ট (লিখিত)

যমীনে বিচরণশীল এমন কোন জীব নেই যার জীবিকার দায়িত্ব আল্লাহর উপর নেই, তিনি জানেন তাদের থাকার জায়গা কোথায় আর কোথায় তাদেরকে (মৃত্যুর পর) রাখা হয়, সব কিছুই আছে সুস্পষ্ট লিপিকায়।

ব্যাখ্যা
وَهُوَ
এবং তিনিই (আল্লাহ)
ٱلَّذِى
যিনি
خَلَقَ
সৃষ্টি করেছেন
ٱلسَّمَٰوَٰتِ
আকাশ
وَٱلْأَرْضَ
ও পৃথিবী
فِى
মধ্যে
سِتَّةِ
ছয়
أَيَّامٍ
দিনে
وَكَانَ
এবং (এর পূর্বে) ছিলো
عَرْشُهُۥ
তাঁর আরশ
عَلَى
উপর
ٱلْمَآءِ
পানির
لِيَبْلُوَكُمْ
যেন তিনি তোমাদের পরীক্ষা করতে পারেন
أَيُّكُمْ
তোমাদের মধ্যে কে
أَحْسَنُ
উত্তম
عَمَلًاۗ
কাজকর্মে
وَلَئِن
এবং অবশ্যই যদি
قُلْتَ
তুমি বলো
إِنَّكُم
"নিশ্চয়ই তোমরা
مَّبْعُوثُونَ
উত্থিত হবে
مِنۢ
থেকে
بَعْدِ
পরে
ٱلْمَوْتِ
মৃত্যুর"
لَيَقُولَنَّ
অবশ্যই তারা বলবে
ٱلَّذِينَ
যারা
كَفَرُوٓا۟
অস্বীকার করেছে
إِنْ
"নয়
هَٰذَآ
"এটা
إِلَّا
এছাড়া
سِحْرٌ
জাদু
مُّبِينٌ
সুস্পষ্ট"

আর তিনিই আসমানসমূহ আর যমীনকে ছ’দিনে সৃষ্টি করেছেন। ইতোপূর্বে তাঁর আরশ ছিল পানির উপর। (সৃষ্টি করেছেন) তোমাদেরকে পরীক্ষা করার উদ্দেশে যে, তোমাদের মধ্যে ‘আমালের ক্ষেত্রে কারা শ্রেষ্ঠ। তুমি যদি বল, ‘‘মৃত্যুর পর তোমাদেরকে অবশ্য অবশ্যই আবার উঠানো হবে, তাহলে কাফিররা অবশ্যই বলবে যে, এতো সুস্পষ্ট যাদু।

ব্যাখ্যা
وَلَئِنْ
এবং অবশ্যই যদি
أَخَّرْنَا
আমরা স্হগিত রাখি
عَنْهُمُ
তাদের থেকে
ٱلْعَذَابَ
শাস্তি
إِلَىٰٓ
পর্যন্ত
أُمَّةٍ
একটি সময়
مَّعْدُودَةٍ
নির্দিষ্ট
لَّيَقُولُنَّ
(তবে) অবশ্যই তারা বলবে
مَا
"কিসে
يَحْبِسُهُۥٓۗ
তা আটকে রেখেছে"
أَلَا
সাবধান
يَوْمَ
যেদিন
يَأْتِيهِمْ
তাদের কাছে আসবে (তা)
لَيْسَ
না
مَصْرُوفًا
ফিরানো যায়
عَنْهُمْ
থেকে তাদের (সেই শাস্তি)
وَحَاقَ
এবং ঘিরে রাখবে
بِهِم
তাদেরকে
مَّا
যা
كَانُوا۟
তারা ছিলো
بِهِۦ
সম্বন্ধে সে
يَسْتَهْزِءُونَ
ঠাট্টা তামাশা করতো

আমি যদি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য তাদের থেকে শাস্তি বিলম্বিত করি, তাহলে তারা অবশ্য অবশ্যই বলবে যে, ‘কিসে ওটাকে আটকে রাখল? সাবধান! এমন দিন তাদের কাছে আসবে যা তাদের থেকে কেউ ফিরিয়ে দিতে পারবে না, আর যা নিয়ে তারা ঠাট্টা বিদ্রূপ করছিল তাই তাদেরকে ঘিরে ফেলবে।

ব্যাখ্যা
وَلَئِنْ
এবং অবশ্যই যদি
أَذَقْنَا
আমরা আস্বাদন করাই
ٱلْإِنسَٰنَ
মানুষকে
مِنَّا
আমাদের পক্ষ থেকে
رَحْمَةً
কোন অনুগ্রহ
ثُمَّ
এরপর
نَزَعْنَٰهَا
তা আমরা ছিনিয়ে নিই
مِنْهُ
তার থেকে
إِنَّهُۥ
(তবে) সে নিশ্চয়ই
لَيَـُٔوسٌ
অবশ্যই হতাশ হয়
كَفُورٌ
অকৃতজ্ঞ (হয়)

আমি যদি মানুষকে আমার পক্ষ থেকে রহমত আস্বাদন করাই অতঃপর তা তার থেকে ছিনিয়ে নেই, তখন সে অবশ্যই হতাশ ও অকৃতজ্ঞ হয়ে পড়ে।

ব্যাখ্যা
وَلَئِنْ
এবং অবশ্যই যদি
أَذَقْنَٰهُ
তাকে আমরা আস্বাদন করাই
نَعْمَآءَ
অনুগ্রহসমূহ
بَعْدَ
পরে
ضَرَّآءَ
দুঃখ-কষ্টের (যা)
مَسَّتْهُ
তাকে স্পর্শ করেছিলো
لَيَقُولَنَّ
অবশ্যই তারা বলবেই
ذَهَبَ
"কেটে গেছে
ٱلسَّيِّـَٔاتُ
বিপদ আপদ
عَنِّىٓۚ
আমার থেকে
إِنَّهُۥ
নিশ্চয়ই সে
لَفَرِحٌ
অবশ্যই উল্লাসে ফেটে পড়ে
فَخُورٌ
অহংকারী (হয়ে উঠে)

আর যদি তার উপরে আসা দুঃখ কষ্টের পর তাকে নি‘মাতের স্বাদ আস্বাদন করাই, তখন সে অবশ্য অবশ্যই বলবে, ‘আমার দূরবস্থা কেটে গেছে’। তখন সে আনন্দে উৎফুল্ল হয়, হয়ে পড়ে অহঙ্কারী।

ব্যাখ্যা
সম্পর্কে তথ্য :
হুদ
القرآن الكريم:هود
আধিপত্য একটি আয়াত (سجدة):-
সূরা নাম (latin):Hud
সূরা না:11
মোট আয়াত:123
মোট শব্দ:1600
মোট অক্ষর:9567
রুকু সংখ্যা:10
উদ্ঘাটন অবস্থান:মক্কা
উদ্ঘাটন আদেশ:52
শ্লোক থেকে শুরু:1473