Skip to main content
ARBNDEENIDTRUR
bismillah
يَٰٓأَيُّهَا
ওহে
ٱلَّذِينَ
যারা
ءَامَنُوا۟
ঈমান এনেছ
لَا
না
تَتَّخِذُوا۟
তোমরা গ্রহণ করো
عَدُوِّى
আমার শত্রুকে
وَعَدُوَّكُمْ
ও তোমাদের শত্রুকে
أَوْلِيَآءَ
বন্ধুরূপে
تُلْقُونَ
তোমরা স্থাপন কর
إِلَيْهِم
তাদের সাথেে
بِٱلْمَوَدَّةِ
বন্ধুত্ব
وَقَدْ
অথচ নিশ্চয়
كَفَرُوا۟
ত্রা অস্বীকার করেছে
بِمَا
যা
جَآءَكُم
তোমাদের কাছে এসেছে
مِّنَ
থেকে
ٱلْحَقِّ
সত্য
يُخْرِجُونَ
তারা বহিষ্কার করেছে
ٱلرَّسُولَ
রসূলকে
وَإِيَّاكُمْۙ
এবং তোমাদেরকেও
أَن
একারণে যে
تُؤْمِنُوا۟
তোমরা ঈমান এনেছো
بِٱللَّهِ
আল্লাহর উপর
رَبِّكُمْ
তোমাদের রব
إِن
যদি
كُنتُمْ
তোমরা
خَرَجْتُمْ
বের হয়ে থাকো
جِهَٰدًا
জিহাদে
فِى
(মধ্যে)
سَبِيلِى
আমার পথে
وَٱبْتِغَآءَ
ও সন্ধানে
مَرْضَاتِىۚ
আমার সন্তুষ্টির
تُسِرُّونَ
তোমরা গোপনে কর
إِلَيْهِم
তাদের সাথে
بِٱلْمَوَدَّةِ
বন্ধুত্ব
وَأَنَا۠
আমি অথচ
أَعْلَمُ
সম্যক অবগত
بِمَآ
যা কিছু
أَخْفَيْتُمْ
তোমরা গোপন কর
وَمَآ
ও যা
أَعْلَنتُمْۚ
তোমরা প্রকাশ কর
وَمَن
এবং যে
يَفْعَلْهُ
তা করবে
مِنكُمْ
তোমাদের মধ্যে
فَقَدْ
অতঃপর নিশ্চয়
ضَلَّ
ভ্রষ্ট হয়েছে
سَوَآءَ
সোজা
ٱلسَّبِيلِ
পথ থেকে

হে ঈমানদারগণ! তোমরা আমার ও তোমাদের শত্রুদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করো না, তোমরা তাদের কাছে বন্ধুত্বের খবর পাঠাও, অথচ যে সত্য তোমাদের কাছে এসেছে তারা তা প্রত্যাখ্যান করেছে। তারা রসূলকে আর তোমাদেরকে শুধু এ কারণে বের করে দিয়েছে যে, তোমরা তোমাদের প্রতিপালক আল্লাহয় বিশ্বাস কর। তোমরা যদি আমার সন্তুষ্টি কামনায় আমার পথে জিহাদে বের হয়ে থাক, তাহলে তোমরা কেন গোপনে তাদের সাথে বন্ধুত্ব করছ? তোমরা যা গোপন কর আর তোমরা যা প্রকাশ কর, তা আমি খুব ভাল করেই জানি। তোমাদের মধ্যে যে তা করে সে সরল পথ থেকে ভ্রষ্ট হয়ে গেছে।

ব্যাখ্যা
إِن
যদি
يَثْقَفُوكُمْ
তোমাদের কাবু করতে পারে
يَكُونُوا۟
তারা হয়
لَكُمْ
তোমাদের জন্য
أَعْدَآءً
শত্রু
وَيَبْسُطُوٓا۟
ও তারা সম্প্রসারিত করে
إِلَيْكُمْ
তোমাদের দিবে
أَيْدِيَهُمْ
তাদের হাতগুলো
وَأَلْسِنَتَهُم
ও তাদের রসনাগুলো
بِٱلسُّوٓءِ
মন্দের সাথে
وَوَدُّوا۟
ও তারা কামনা করে
لَوْ
যদি
تَكْفُرُونَ
তোমরা কাফির হও

তারা তোমাদেরকে জব্দ করতে পারলেই শত্রুর আচরণ করবে, আর তোমাদের অনিষ্ট করার জন্য তারা তাদের হাত ও মুখের ভাষা সম্প্রসারিত করবে আর তারা চাইবে যে, তোমরাও যেন কুফুরী কর।

ব্যাখ্যা
لَن
কখনো না
تَنفَعَكُمْ
তোমাদের উপকার দেবে
أَرْحَامُكُمْ
তোমাদের আত্মীয়দের
وَلَآ
এবং না
أَوْلَٰدُكُمْۚ
তোমাদের সন্তানদের
يَوْمَ
দিনে
ٱلْقِيَٰمَةِ
কিয়ামতের
يَفْصِلُ
বিচ্ছেদ করবেন তিনি
بَيْنَكُمْۚ
তোমাদের মাঝে
وَٱللَّهُ
এবং আল্লাহ
بِمَا
যা
تَعْمَلُونَ
তোমরা কাজ কর
بَصِيرٌ
সব দেখেন

ক্বিয়ামতের দিন তোমাদের আত্মীয়-স্বজন ও সন্তানাদি তোমাদের কোনই উপকারে আসবে না। (নিজ নিজ ‘আমালের ভিত্তিতে) আল্লাহ তোমাদের মধ্যে ফয়সালা করে দিবেন; তোমরা যা কর আল্লাহ তা দেখেন।

ব্যাখ্যা
قَدْ
নিশ্চই
كَانَتْ
রয়েছে
لَكُمْ
তোমাদের জন্য
أُسْوَةٌ
আদর্শ
حَسَنَةٌ
উত্তম
فِىٓ
মধ্যে
إِبْرَٰهِيمَ
ইব্রাহীমের
وَٱلَّذِينَ
ও যারা
مَعَهُۥٓ
তার সাথে
إِذْ
যখন
قَالُوا۟
তারা বলেছিলো
لِقَوْمِهِمْ
তাদের জাতিকে
إِنَّا
"আমরা নিশ্চই
بُرَءَٰٓؤُا۟
নিঃ সম্পর্ক
مِنكُمْ
তোমাদের থেকে
وَمِمَّا
ও যা থেকে
تَعْبُدُونَ
তোমরা ইবাদত কর
مِن
মধ্য হতে
دُونِ
ছাড়া
ٱللَّهِ
আল্লাহ
كَفَرْنَا
আমরা অস্বীকার করছি
بِكُمْ
তোমাদেরকে
وَبَدَا
ও সৃষ্টি হল
بَيْنَنَا
আমাদের মাঝে
وَبَيْنَكُمُ
ও তোমাদের মাঝে
ٱلْعَدَٰوَةُ
শত্রুতা
وَٱلْبَغْضَآءُ
ও বিদ্বেষ
أَبَدًا
চিরকালের
حَتَّىٰ
যতক্ষণ না
تُؤْمِنُوا۟
তোমরা ঈমান আনো
بِٱللَّهِ
আল্লাহর উপর
وَحْدَهُۥٓ
তার একার"
إِلَّا
তবে ব্যাতিক্রম
قَوْلَ
উক্তি
إِبْرَٰهِيمَ
ইব্রাহীমের
لِأَبِيهِ
তার বাপের জন্য
لَأَسْتَغْفِرَنَّ
"আমি ক্ষমা চাইব অবশ্যই
لَكَ
তোমার জন্য
وَمَآ
ও না
أَمْلِكُ
আমি সাধ্য রাখি
لَكَ
তোমার জন্য
مِنَ
হতে
ٱللَّهِ
আল্লাহ
مِن
কোন
شَىْءٍۖ
কিছুই
رَّبَّنَا
হে আমাদের রব
عَلَيْكَ
তোমার উপর
تَوَكَّلْنَا
আমরা ভরসা করেছি
وَإِلَيْكَ
ও তোমাার দিকে
أَنَبْنَا
আমরা অভিমুখী
وَإِلَيْكَ
ও তোমার কাছেই
ٱلْمَصِيرُ
প্রত্যাবর্তন স্থল

ইবরাহীম ও তার সঙ্গী-সাথীদের মধ্যে তোমাদের জন্য আছে উত্তম আদর্শ। যখন তারা তাদের সম্প্রদায়কে বলেছিল- ‘তোমাদের সঙ্গে আর আল্লাহকে বাদ দিয়ে তোমরা যাদের ‘ইবাদাত কর তাদের সঙ্গে আমাদের কোন সম্পর্ক নেই। আমরা তোমাদেরকে প্রত্যাখ্যান করছি। আমাদের আর তোমাদের মাঝে চিরকালের জন্য শত্রুতা ও বিদ্বেষ শুরু হয়ে গেছে যতক্ষণ তোমরা এক আল্লাহর প্রতি ঈমান না আনবে। তবে ইবরাহীম যে তার পিতাকে বলেছিল- ‘আমি অবশ্য অবশ্যই তোমার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করব আর আমি তোমার জন্য আল্লাহর কাছ থেকে কোন কিছু করারই অধিকার রাখি না’’- এটা একটা ব্যতিক্রম। (আর ইবরাহীম ও তার সঙ্গী সাথীরা প্রার্থনা করেছিল) ‘হে আমাদের প্রতিপালক! আমরা তোমারই উপর নির্ভর করছি, তোমারই অভিমুখী হচ্ছি, আর (সব কিছুর) প্রত্যাবর্তন তো তোমারই পানে।

ব্যাখ্যা
رَبَّنَا
হে আমাদের রব
لَا
না
تَجْعَلْنَا
আমাদের বানিও
فِتْنَةً
ফিতনা
لِّلَّذِينَ
তাদের জান্য যারা
كَفَرُوا۟
কুফরি করেছে
وَٱغْفِرْ
ও মাফ কর
لَنَا
আমাদের ,
رَبَّنَآۖ
হে আমাদের রব
إِنَّكَ
তুমি নিশ্চই
أَنتَ
তুমিই
ٱلْعَزِيزُ
পরাক্রমশালী
ٱلْحَكِيمُ
প্রজ্ঞাময়।"

হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদেরকে কাফিরদের উৎপীড়নের পাত্র করো না, হে আমাদের প্রতিপালক! তুমি আমাদেরকে ক্ষমা কর, তুমি মহা পরাক্রান্ত, মহা বিজ্ঞানী।

ব্যাখ্যা
لَقَدْ
নিশ্চই
كَانَ
আছে
لَكُمْ
তোমাদের জন্য
فِيهِمْ
তাদের মধ্যে
أُسْوَةٌ
আদর্শ
حَسَنَةٌ
উত্তম
لِّمَن
যে তার জন্য
كَانَ
ছিল
يَرْجُوا۟
আকাঙ্খা রাখে
ٱللَّهَ
আল্লাহর
وَٱلْيَوْمَ
ও দিনের
ٱلْءَاخِرَۚ
শেষ
وَمَن
এবং যে
يَتَوَلَّ
মুখ ফিরাবে
فَإِنَّ
নিশ্চ্চই তবে
ٱللَّهَ
আল্লাহ
هُوَ
তিনিই
ٱلْغَنِىُّ
অভাভহীন
ٱلْحَمِيدُ
প্রসংসিত।

তোমরা যারা আল্লাহ (’র রহমত) ও শেষ দিবসের (সাফল্যের) প্রত্যাশী তাদের জন্য উত্তম আদর্শ রয়েছে তাদের [অর্থাৎ ইবরাহীম (আঃ) তাঁর অনুসারীদের] মধ্যে। আর কেউ মুখ ফিরিয়ে নিলে (সে জেনে রাখুক) আল্লাহ অমুখাপেক্ষী, প্রশংসিত।

ব্যাখ্যা
عَسَى
সম্ভবত
ٱللَّهُ
আল্লাহ
أَن
যে
يَجْعَلَ
সৃষ্টি করে দিবেন
بَيْنَكُمْ
তোমাদের মাঝে
وَبَيْنَ
ও মাঝে
ٱلَّذِينَ
যাদের সাথে
عَادَيْتُم
তোমরা শত্রুতা করেছো
مِّنْهُم
তাদের মধ্যে
مَّوَدَّةًۚ
বন্ধুত্ব
وَٱللَّهُ
এবং আল্লাহ
قَدِيرٌۚ
সর্বশক্তিমান
وَٱللَّهُ
ও আল্লাহ
غَفُورٌ
ক্ষমাশীল
رَّحِيمٌ
মেহেরবান

সম্ভবত আল্লাহ তোমাদের মধ্যে আর তাদের মধ্যেকার যাদেরকে তোমরা শত্রু বানিয়ে নিয়েছ তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব সৃষ্টি করে দিবেন (তাদের মুসলিম হয়ে যাওয়ার মাধ্যমে)। আল্লাহ বড়ই শক্তিমান, আল্লাহ অতি ক্ষমাশীল, অতীব দয়ালু।

ব্যাখ্যা
لَّا
না
يَنْهَىٰكُمُ
তোমাদের নিষেধ করেন
ٱللَّهُ
আল্লাহ
عَنِ
থেকে
ٱلَّذِينَ
তাদের যারা
لَمْ
নাই
يُقَٰتِلُوكُمْ
যুদ্ধ করে তোমাদের সাথে
فِى
ব্যাপারে
ٱلدِّينِ
দ্বীনের
وَلَمْ
এবং নাই
يُخْرِجُوكُم
তোমাদের বহিষ্কৃত করে
مِّن
থেকে
دِيَٰرِكُمْ
তোমাদের ঘরগুলোকে
أَن
যে
تَبَرُّوهُمْ
তোমরা তাদের সাথে নেকী কর
وَتُقْسِطُوٓا۟
ও তোমরা ন্যায় বিচার কর
إِلَيْهِمْۚ
তাদের সহিত
إِنَّ
নিশ্চয়
ٱللَّهَ
আল্লাহ
يُحِبُّ
ভালোবাসেন
ٱلْمُقْسِطِينَ
ন্যায়বিচারকারিদের

দীনের ব্যাপারে যারা তোমাদের সাথে যুদ্ধ করেনি, আর তোমাদেরকে তোমাদের ঘর-বাড়ী থেকে বের ক’রে দেয়নি তাদের সঙ্গে সদয় ব্যবহার করতে আর ন্যায়নিষ্ঠ আচরণ করতে আল্লাহ নিষেধ করেন নি। আল্লাহ ন্যায়পরায়ণদেরকে ভালবাসেন।

ব্যাখ্যা
إِنَّمَا
মূলতঃ
يَنْهَىٰكُمُ
নিষেধ করেছেন
ٱللَّهُ
আল্লাহ
عَنِ
থেকে
ٱلَّذِينَ
যারা
قَٰتَلُوكُمْ
যুদ্ধ করেছে তোমাদের বিরুদ্ধে
فِى
ব্যাপারে
ٱلدِّينِ
দ্বীনের
وَأَخْرَجُوكُم
ও যাদের বহিষ্কার করেছে
مِّن
থেকে
دِيَٰرِكُمْ
তোমাদের ঘরগুুলো
وَظَٰهَرُوا۟
এবং তারা সাহায্য করেছে
عَلَىٰٓ
ব্যাপারে
إِخْرَاجِكُمْ
তোমাদের বহিিষ্কার
أَن
যে
تَوَلَّوْهُمْۚ
তাদের সাথেে তোমরা বন্ধুত্ব কর
وَمَن
এবং যে
يَتَوَلَّهُمْ
তাদের(সাথে) বন্ধুত্ব করে
فَأُو۟لَٰٓئِكَ
অতঃপর ঐসব লোক
هُمُ
তারা
ٱلظَّٰلِمُونَ
যালিম

আল্লাহ তোমাদেরকে কেবল তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে নিষেধ করেছেন যারা তোমাদের সঙ্গে দীনের ব্যাপারে যুদ্ধ করেছে, তোমাদেরকে তোমাদের ঘর-বাড়ী থেকে বের করে দিয়েছে আর তোমাদেরকে বের করে দেয়ার ব্যাপারে সাহায্য করেছে। যারা তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করে তারাই যালিম।

ব্যাখ্যা
يَٰٓأَيُّهَا
ওহেে
ٱلَّذِينَ
যারা
ءَامَنُوٓا۟
ঈমান এনেছ
إِذَا
যখন
جَآءَكُمُ
তোমাদের কাাছে আসবে
ٱلْمُؤْمِنَٰتُ
মুমিন মহিলারা
مُهَٰجِرَٰتٍ
মুহাজির হয়ে
فَٱمْتَحِنُوهُنَّۖ
তাদের তোমরা পরীক্ষা তখন
ٱللَّهُ
আল্লাহ
أَعْلَمُ
খুব জানেন
بِإِيمَٰنِهِنَّۖ
তাদের ঈমান সম্পর্কে
فَإِنْ
যদিি অতএব
عَلِمْتُمُوهُنَّ
তাদের তোমরা জানতে পারো
مُؤْمِنَٰتٍ
মুমিন রূপে
فَلَا
না তখন
تَرْجِعُوهُنَّ
তাদেরকে ফেরত দিও
إِلَى
দিকে
ٱلْكُفَّارِۖ
কাফিরদের
لَا
না
هُنَّ
তারা (মুমিন নারী)
حِلٌّ
হালাল
لَّهُمْ
তাদের জন্য (কাফিরদের)
وَلَا
ও না
هُمْ
তারা
يَحِلُّونَ
হালাল
لَهُنَّۖ
তাদের জন্য(মুমিন নারী্দের)
وَءَاتُوهُم
তাদের দাও তোমরা
مَّآ
যা
أَنفَقُوا۟ۚ
তারা খরচ করেছে
وَلَا
এবং নাই
جُنَاحَ
গুনাহ
عَلَيْكُمْ
তোমাদের উপর
أَن
যে
تَنكِحُوهُنَّ
তাদের তোমরা বিবাহ কর
إِذَآ
যখন
ءَاتَيْتُمُوهُنَّ
তাদের তোমরা দাও
أُجُورَهُنَّۚ
তাদের মোহর
وَلَا
এবং না
تُمْسِكُوا۟
তোমরা ধরে রেখ
بِعِصَمِ
বিবাহ বন্ধন
ٱلْكَوَافِرِ
কাফির স্ত্রীদের
وَسْـَٔلُوا۟
ও তোমরা চাও
مَآ
যা
أَنفَقْتُمْ
তোমরা খরচ করেছ
وَلْيَسْـَٔلُوا۟
ও তারা চেয়ে নিবে
مَآ
যা
أَنفَقُوا۟ۚ
তারা খরচ করেছে
ذَٰلِكُمْ
এটা
حُكْمُ
নির্দেশ
ٱللَّهِۖ
আল্লাহর
يَحْكُمُ
তিনি ফয়সালা দেন
بَيْنَكُمْۚ
তোমাদের মাঝে
وَٱللَّهُ
এবং আল্লাহ
عَلِيمٌ
সরবজ্ঞ
حَكِيمٌ
প্রজ্ঞাময়

হে মু’মিনগণ! ঈমানদার নারীরা যখন তোমাদের কাছে হিজরাত করে আসে তখন তাদেরকে পরখ করে দেখ (তারা সত্যিই ঈমান এনেছে কি না)। তাদের ঈমান সম্বন্ধে আল্লাহ খুব ভালভাবেই জানেন। অতঃপর তোমরা যদি জানতে পার যে, তারা মু’মিনা, তাহলে তাদেরকে কাফিরদের কাছে ফেরত পাঠিও না। মু’মিনা নারীরা কাফিরদের জন্য হালাল নয়, আর কাফিররাও মু’মিনা নারীদের জন্য হালাল নয়। কাফির স্বামীরা (মোহর স্বরূপ) যা তাদের জন্য খরচ করেছিল তা কাফিরদেরকে ফেরত দিয়ে দাও। অতঃপর তোমরা তাদেরকে মোহর প্রদান করতঃ বিয়ে করলে তাতে তোমাদের কোন অপরাধ হবে না। তোমরা কাফির নারীদেরকে (বিবাহের) বন্ধনে আটকে রেখ না। তোমরা (তাদের মোহর স্বরূপ) যা ব্যয় করেছ তা ফেরত চেয়ে নাও, আর কাফিররাও ফেরত চেয়ে নিবে যা তারা ব্যয় করেছে (তাদের মু’মিনা স্ত্রীদের মোহর স্বরূপ)। এটা আল্লাহর নির্দেশ। তিনি তোমাদের মাঝে ফয়সালা করে দেন। আল্লাহ সর্ব জ্ঞানের অধিকারী, মহা বিজ্ঞানী।

ব্যাখ্যা
সম্পর্কে তথ্য :
আল মুমতাহিনা
القرآن الكريم:الممتحنة
আধিপত্য একটি আয়াত (سجدة):-
সূরা নাম (latin):Al-Mumtahanah
সূরা না:60
মোট আয়াত:13
মোট শব্দ:348
মোট অক্ষর:1510
রুকু সংখ্যা:2
উদ্ঘাটন অবস্থান:মদিনা
উদ্ঘাটন আদেশ:91
শ্লোক থেকে শুরু:5150